কানেক্টিভিটি ল্যাবের বিমান এবং লেজার প্রোগ্রাম নতুন মাইলস্টোনগুলি

aquila_line-jpeg

গ্লোবাল ইঞ্জিনিয়ারিং ও ইনফ্রাস্ট্রাকচারের ভাইস প্রেসিডেন্ট, জে পারিখের দ্বারা

Internet.org লঞ্চ করার পর থেকে, এখনো পর্যন্ত অনলাইনে নেই এমন 4 বিলিয়নেরও বেশি সংখ্যক লোকেদের কাছে ইন্টারনেট সংযোগ পোঁছে দেওয়া হল আমাদের লক্ষ৷ এগুলির মধ্যে বেশিরভাগ লোক কমপক্ষে 3G ওয়্যারলেস সিগন্যালের নাগালে বসবাস করেন, এবং গত বছরে 17টি দেশ জুড়ে মোবাইল অপারেটরদের সাথে আমাদের প্রচেষ্টায় এক বিলিয়নেরও বেশি সংখ্যক লোকের কাছে প্রাসঙ্গীক ইন্টারনেট পরিষেবাগুলি অ্যাক্সেস করার সুজোগ করে দিয়েছে৷ কিন্তু বিশ্বের জনসংখ্যার 10 শতাংশ কোন ইন্টারনেট অবকাঠামো ছাড়াই দূরবর্তী অবস্থানে বসবাস করেন এবং অবকাঠামো প্রযুক্তির ধরণগুলি অন্য যেকোন স্থানে ব্যবহার করা হয় – ফাইবার অপটিক কেবল, মাইক্রোওয়েভ রিপিটেটর এবং সেল টাওয়ারের মতো জিনিসগুলির মতো – হয়তো এই অঞ্চলগুলিতে বেশি খরচ দিয়ে স্থাপন করা একটি চ্যালেঞ্জ হতে পারে৷

সেই জন্য কানেক্টিভিটি ল্যাব এসেছে৷ নতুন নতুন প্রযুক্তির উন্নয়ন ত্বরান্বিত করাই হল আমাদের লক্ষ যা ইন্টারনেট অবকাঠামো স্থাপন করার ক্ষেত্রে বহুলাংশে অর্থনীতির পরিবর্তন করতে পারে৷ আমরা এই চ্যালেঞ্জ কার্যকর করতে বিভিন্ন পন্থা অবলম্বল করেছি, বিমান, উপগ্রহ এবং টেরেস্ট্রিয়াল সমাধানগুলো সমেত৷ আমাদের উদ্দেশ্য হল একটি নেটওয়ার্ক গঠন করা এবং তাদের নিজেদেরকে অপারেট করা, বরং দ্রুত এই প্রযুক্তির যথাযথ উন্নতি করার সাথে সাথে স্থাপন করার ক্ষেত্রে সেগুলি অপারেটর এবং অন্যান্য অংশীদারদের জন্য টেকসই সমাধান হয়ে উঠেছে৷

এই কাজে আজ আমাদের কানেক্টিভিটি ল্যাবের টিম দুইটি প্রধান মাইলস্টোন ঘোষণা করেছে:

— আকিলার একটি পূর্ণ মাত্রার সংস্করণ – যুক্তরাজ্যে আমাদের মহাকাশ দলের দ্বারা নির্মিত উচ্চ উচ্চতায়, দীর্ঘ সহনশীলতা বিমান – এখন সম্পূর্ণ এবং ফ্লাইট পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত৷ আকিলার পাখার প্রসারতার দৈর্ঘ্য 737 কিন্তু ওজন শত শত গুণ কম, তার অনন্য নকশা এবং কার্বন-ফাইবার ফ্রেমকে ধন্যবাদ৷ যখন স্থাপন করা হবে, তখন এটি একটি প্রত্যন্ত অঞ্চলে 90 দিন পর্যন্ত ঘুরতে সক্ষম হবে, নীচে লোকেদের 60,000 থেকে 90,000 ফুট উচ্চতায় থেকে সংযোগ প্রদান করতে পারবে৷

— উডল্যান্ড হিলস, ক্যালিফোর্নিয়ায় আমাদের লেজারের কমিউনিকেশনস দল, উল্লেখযোগ্য কর্ম সঞ্চালনের যুগান্তকারী সাফল্য অর্জন করেছে৷ তারা একটি লেজার ডিজাইন করেছে এবং ল্যাবে পরীক্ষা করেছে যা সেকেন্ডে 10 জিবি হারে ডেটা প্রদান করতে পারে – যা শিল্পে পূর্ববর্তী স্টেট-অফ-দ্যা-আর্টের থেকে 10 গুন দ্রুত – 10 মাইলেরও বেশি দুর থেকে একটি তুচ্ছ একটি লক্ষ্য আকার থেকে৷ আমরা এখন বাস্তব বিশ্বের অবস্থায় এই লেজারের পরীক্ষা শুরু করছি৷ যখন শেষ হবে, আমাদের বিমান একে অপরের সাথে এবং স্থলের সঙ্গে সংযুক্ত করতে আমাদের লেজারের যোগাযোগ ব্যবস্থাকে ব্যবহার করা যেতে পারে, যার ফলে এটি সম্ভব একটি স্ট্রাটস্ফিয়ারিক নেটওয়ার্ক তৈরি করার সম্ভব যা বিশ্বের প্রত্যন্ত অঞ্চলে আরও প্রসারিত করতে পারা যাবে৷

এটি করার জন্য আমাদের এখনো অনেক কাজ করতে হবে, কিন্তু আমরা আমাদের প্রথম দিকের অগ্রগতির উপর খুবই আগ্রহী৷ এবং ওপেন কম্পিউট প্রজেক্টে আমরা যেভাবে সম্পন্ন করেছে, সেই রকম আমরা বৃহত্তর সম্প্রদায়ের সাথে নিয়োজিত করার এবং যা শিখেছি তা ভাগ করার পরিকল্পনা করেছি, তাই এই প্রযুক্তির উন্নয়নে আমরা খুব দ্রুত এগোতে পারি৷

আরো পোস্ট

Facebook © 2017 Powered by WordPress.com VIP