সংযোগের স্থিতি 2015: বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট সুবিধা লাভের উপর একটি প্রতিবেদন

সংযোগের স্থিতি 2015: বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট সুবিধার, উপর একটি প্রতিবেদন, যেটি Facebook-এর দ্বিতীয় বার্ষিক সমীক্ষা, খুব খুঁটিয়ে বিশ্বব্যাপী ইন্টারনেট সংযোগের বর্তমান অবস্থা, 2014-এর পর থেকে এটি কিভাবে বদলেছে এবং নতুন দৃষ্টিকোণ তৈরী করতে শনাক্ত ডেটা আমরা কিভাবে ব্যবহার করতে পারি তা পর্যালোচনা করে।

2015-র শেষে, আনুমানিক প্রায় 3.2 লক্ষ কোটি মানুষ অনলাইন ছিলেন। এই বৃদ্ধির (2014-তে 3 লক্ষ কোটি থেকে বাড়তে শুরু করেছে) কারণস্বরূপ আরো বেশি সাশ্রয়ী ডেটা এবং 2014-তে বিশ্বজনীন উপার্জন বৃদ্ধিকে আংশিক দায়ী করা যায়। গত 10 বছর ধরে প্রত্যেক বছরে সংযোগের বৃদ্ধি 200 থেকে 300 লক্ষ মানুষে গিয়ে দাঁড়িয়েছে।

বৃদ্ধির দিক থেকে এটি ইতিবাচক খবর হলেও, এটির অর্থ হল যে পুরো বিশ্বে 2015 সালেও 4.1 লক্ষ কোটি লোক ইন্টারনেট ব্যবহারকারী নন।

ইন্টারনেট সুবিধা লাভের চারটি মূল বাধার মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে:

  • উপলব্ধতা: সুবিধা লাভের জন্য দরকারী অপরিহার্য পরিকাঠামোর সান্নিধ্য।
  • ক্রয়ক্ষমতা: সুবিধালাভের খরচা উপার্জনের সাথে জড়িত।
  • প্রাসঙ্গিকতা: প্রবেশ করার একটি কারণ হল, প্রাথমিক ভাষায় বিষয় রচনা।
  • প্রস্তুতি: দক্ষতা, সচেতনতা এবং সাংস্কৃতিক গ্রহণীয়তাসহ সুবিধালাভের সামর্থ্য।

সংযোগস্থাপনের বাধাগুলিকে লক্ষ্য করতে গেলে, কর্পোরেশন, সরকার, এনজিও এবং অলাভজনক সংস্থাগুলিকে একসাথে কাজ করে বিশ্বজনীন সংযোগের উপর আরো নির্ভুল তথ্য জোগাড় করা চালিয়ে যেতে হবে এবং এই তথ্যগুলি সংগ্রহ, প্রতিবেদন ও বিতরণের জন্য বিশ্বজনীন মান গড়ে তুলতে হবে।

উদাহরণ স্বরূপ বলা যায়, 20টি দেশের জনসংখ্যার বিতরণ দেখিয়ে একটি বিশদ মানচিত্র তৈরীর কাজে Facebook সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল আর্থ সায়েন্স ইনফর্মেশন নেটওয়ার্কের সাথে সহযোগিতা করছে। এই মানচিত্রগুল নতুন মেশিন লার্নিং প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরী এবং আজকের তারিখ পর্যন্ত উপলব্ধ জনবসতি ও জনসংখ্যা বিতরণের সবথেকে নির্ভুল অনুমানটি দেখায়।

ছবি 1A: বিদ্যমান জনসংখ্যার বিতরণ (কেনিয়ার একটি উপকূল অঞ্চলে ওয়ার্ল্ড ডেটাসেটের (GPW) সারিবদ্ধ জনসংখ্যা

ছবি 1B: তৃতীয় পক্ষের স্যাটেলাইট চিত্রের প্রক্রিয়াকরণের উপর নির্ভর করা 1A এ প্রদর্শিত একই অঞ্চলের জনসংখ্যার বণ্টনের Facebook এর নতুন হিসাবগুলি

এই ডেটাটি জনসংখ্যার বন্টনের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যের উপর আরও ভালো জ্ঞানলাভে সহায়তা করে যাতে সরকার এবং অন্যান্যরা পরিবহন থেকে স্বাস্থ্যসেবা ও শিক্ষা সম্বন্ধিত পরিকাঠামোগুলিতে অর্থ বিনিয়োগেরর উপর জোর দিতে পারে৷
আপৎকালীন অবস্থা ও অন্যান্য বিপর্যয় চলাকালীন প্রতিক্রিয়ার সময় দ্রুত করতে এটি আমাদেরকে সাহায্য করবে এবং বিকাশের পরিবেশগত প্রভাবগুলি উপলব্ধি সম্পর্কে আমাদেরকে অবহিত রাখবে।

জনসংখ্যা বিতরণের তথ্য Facebook-এর কানেক্টিভিটি ল্যাবকেও নির্দেশ দিতে সাহায্য করবে। এটি অগ্রাধিকারের প্রকল্পগুলির প্রকার চিনতে সাহায্য করবে এবং লক্ষ্য উন্নয়নেও সহায়তা করবে। এই বছরের পরের দিকে Facebook বিশদ জনসংখ্যার অনুমানটির উৎস মুক্ত করবে।

সংযোগের অবস্থার মত প্রতিবেদন বিকাশের সাথে শিল্প এবং তার বাইরেও বিস্তীর্ণ সহযোগিতার মাধ্যমে, আমরা সুবিধালাভের মূল বাধাগুলি চিহ্ণিত করার এবং শীঘ্রই এই ডিজিটাল বিভাজন বন্ধ করার আশা রাখি।

সংযোগের অবস্থার পূর্ণ প্রতিবেদনটি এখানে গিয়ে পড়ুন

ডেটা অ্যাসিস্টেড জনসংখ্যা বিতরণের মানচিত্রকরণ সম্পর্কে এখানে এবং এখানে আরো জানুন।

আরো পোস্ট

Facebook © 2017 Powered by WordPress.com VIP